রাজবাড়ী জেলা সদর থেকে প্রকাশিত দৈনিক রাজবাড়ী কণ্ঠের মিডিয়াভুক্তির ব্যাপারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আপত্তি



রাজবাড়ী জেলা সদর থেকে প্রকাশিত
দৈনিক রাজবাড়ী কণ্ঠের মিডিয়াভুক্তির
ব্যাপারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আপত্তি

জাকির হোসেন ঃ রাজবাড়ী জেলা সদর থেকে প্রকাশিত দৈনিক রাজবাড়ী কণ্ঠের সরকারী মিডিয়া তালিকাভুক্তির ব্যাপারে ৩য় দফায় আপত্তি জ্ঞাপন করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
  জানাগেছে, গত ৯ই এপ্রিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের রাজনৈতিক-৩ অধিশাখার উপ-সচিব মনোয়ারা ইশরাতের স্বাক্ষরিত নং-৪৪.০০.০০০০.০৭৬.০১.০০৪.১৬.১৮৩ স্মারকের পত্রের মাধ্যমে দৈনিক রাজবাড়ী কণ্ঠের মিডিয়াভুক্তির ব্যাপারে আপত্তি জ্ঞাপন করে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং চলচ্চিত্র প্রকাশনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের পত্র প্রদান করা হয়েছে।
  সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানাগেছে, রাজবাড়ী থেকে প্রকাশিত দৈনিক রাজবাড়ী কণ্ঠের মিডিয়াভুক্তির লক্ষ্যে ওই পত্রিকার সম্পাদক নিয়মিত প্রকাশনার প্রত্যয়ন পত্রের জন্য তথ্য মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করে। তার আবেদনের প্রেক্ষিতে গোয়েন্দা সংস্থাসমূহ কর্তৃক তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিল করে। উক্ত প্রতিবেদন পর্যালোচনান্তে মিডিয়াভুক্তির বিদ্যমান নীতিমালার শর্ত পূরণ না হওয়ায় মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের রাজনৈতিক-৩ অধিশাখা থেকে “স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আপত্তি জ্ঞাপন” উল্লেখ করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে পত্র দেওয়া হয়।
  উল্লেখ্য, এরআগে পত্রিকার সম্পাদকের আবেদনের প্রেক্ষিতে গোয়েন্দা সংস্থার মাধ্যমে তদন্তপূর্বক স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রণালয় থেকে গত ২৬/০৭/২০১৫ তারিখে রাজনৈতিক-৩ অধিশাখার যুগ্ম-সচিব মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান কর্তৃক স্বাক্ষরিত স্মারক সংখ্যা-৪৪.০০.০০০০.০৭৬.০১.০০৮.১৪-৪৩০ নং পত্রের মাধ্যমে পত্রের মাধ্যমে ১ম দফায় আপত্তি এবং এরপর পরবর্তীতে পুনরায় আবেদনের প্রেক্ষিতে গত ১৬/১০/২০১৬ তারিখে একই শাখার উপ-সচিব মনোয়ারা ইশরাত স্বাক্ষরিত স্মারক সংখ্যা-৪৪.০০.০০০০.০৭৬.০১.০০৮.১৪-৩৭১ পত্রের মাধ্যমে ২য় দফায় দৈনিক রাজবাড়ী কণ্ঠের মিডিয়াভুক্তির আপত্তি জ্ঞাপন করা হয়। সর্বশেষ গত ৯ই এপ্রিল ৩য় দফায় আপত্তি জ্ঞাপন করেছে মন্ত্রণালয়।
  একাধিক সুত্র জানায়, সংশ্লিষ্ট সংস্থাসমূহের তদন্তে দৈনিক রাজবাড়ী কণ্ঠের ভুয়া প্রচার সংখ্যা, নাম সর্বস্ব জনবল কাঠামো, মিথ্যা সংবাদ পরিবেশনের ঘটনায় আদালতে ৪/৫টি মামলা এবং পত্রিকার সম্পাদক খান মোঃ জহুরুল হকের অতীত ও বর্তমান রাজনৈতিক মতাদর্শসহ বর্তমানে আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশের ঘটনা প্রকাশ পেয়েছে।
  সুত্রগুলো আরো জানায়, পত্রিকার সম্পাদক খান মোঃ জহুরুল হক বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র শিবিরের সক্রিয় নেতা হিসেবে ১৯৯০ সালে রাজবাড়ী সরকারী কলেজ ছাত্র সংসদ নির্বাচনে ছাত্র শিবিরের দেলোয়ার-রুহুল-জহুরুল নামক পরিষদ হতে এজিএস পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করিয়া পরাজিত হন এবং দীর্ঘদিন ছাত্র শিবিরের রাজনীতিতে যুক্ত ছিলেন। বিগত বিএনপি-জামায়াত চারদলীয় জোট সরকারের আমলে ২০০৪ সালের মাঝামাঝি সময়ে তিনি রাজবাড়ী-১ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য আলী নেওয়াজ মাহমুদ খৈয়মের তদবীরে দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার রাজবাড়ী জেলা প্রতিনিধি হিসাবে নিয়োগ পান। ওই সময়ে তার সাপ্তাহিক রাজবাড়ী কণ্ঠ দলীয় মুখপত্র হিসেবে জেলায় পরিচিতি পায়। পরবতীতে স্পেশাল ব্রাঞ্চ ও ডিএসবি’র মতামত ছাড়াই সাপ্তাহিক রাজবাড়ী কন্ঠ দৈনিক হিসেবে রূপান্তর করায় ঘটনায় তৎকালীন রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার মোঃ রেজাউল হক ২৮/৫/২০১৩ তারিখের তার কার্যালয়ের নং-১৪৩৯/৭-২০১৩(৩) স্মারকের নির্দেশে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান তদন্ত করেন। তদন্ত শেষে তিনি গত ১৪/৭/২০১৩ তারিখে ৪৮২/এস-২ স্মারকে রাজবাড়ী কন্ঠ পত্রিকাটি সাপ্তাহিক থেকে দৈনিক হিসেবে প্রকাশনার জন্য এসবি ও ডিএসবি’র মতামত না নেওয়ায় সরকারী মিডিয়াভুক্তির জন্য নিয়মিত প্রকাশনার প্রত্যয়নপত্র প্রদান সমীচীন নয় উল্লেখ করেন এবং এসবি/ডিএসবি’র মতামত ছাড়াই পত্রিকাটির দৈনিকে রূপান্তরের ডিক্লারেশন প্রদানও যুক্তিযুক্ত হয়নি মর্মে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।
  এদিকে দৈনিক হিসেবে রূপান্তরের পর প্রকাশনার শুরুতে রাজবাড়ী কণ্ঠের ১/১২/২০১২ তারিখ হতে পর পর ৩দিন ইসলামী সংগঠন হেজবুত তওহীদ ও এই সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নী-এর পক্ষে বিভিন্ন কার্যক্রম নিয়ে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এরপর গত ০২/০৩/২০১৩ তারিখের সংখ্যায় “শাহবাগ চত্বর কিন্তু পুরো বাংলাদেশ নয়” শিরোনামে সম্পাদকীয় এবং গত ২৯/১০/২০১৬ তারিখে “ফিরে দেখা : বর্বরতা ২৮ অক্টোবর” শিরোনামে উপ-সম্পাদকীয়তে সরকারের সমালোচনা করে নিবন্ধ প্রকাশ করে।
  এছাড়াও রাজবাড়ীর সাবেক জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খানকে ব্ল্যাক মেইলিং ও তার ভাবমুর্তির ক্ষুন্নের জন্য দৈনিক রাজবাড়ী কণ্ঠে ভিত্তিহীন অপপ্রচার ও ফেসবুকে মিথ্যাচারসহ সম্মানহানির দায়-দায়িত্ব স্বীকার করে পত্রিকার সম্পাদক মোঃ জহুরুল হক এবং একই পত্রিকার বার্তা সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন গত ০২/০৮/২০১৫ তারিখে জেলা প্রশাসকের কাছে অঙ্গীকার নামা(মুচলেকা) প্রদান করিয়া ক্ষমা প্রার্থনা করেন। এ বিষয়ে স্থানীয় সাপ্তাহিক অনুসন্ধান পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়।

No comments: