মধুখালীতে যাত্রীবাহী বাসে ডাকাতি, মালামাল নিয়ে পলানোর সময় পুলিশের গুলিতে আহত ব্যাক্তি অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার

মধুখালীতে যাত্রীবাহী বাসে ডাকাতি, মালামাল নিয়ে পলানোর সময়
পুলিশের গুলিতে আহত ব্যাক্তি অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার
মধুখালী(ফরিদপুর)সংবাদদাতা (দেশআমারবিডি ডট কম) :
আপডেট : ০৪:০২, ডিসেম্বর ২১, ২০১৬, বুধবার
ফরিদপুরে মধুখালীতে যাত্রীবাহী বাসে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। মালামাল নিয়ে মাইক্রেবাসে পলানোর সময়  পুলিশের গুলিতে আহত এক ডাকাত অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার দিাবগত রাতে এ ঘটনা ঘটে ফরিদপুরের মধুখালী ও বোয়ারমারী উপজেলায়।
পুলিশের গুলিতে আহত হয়ে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার হওয়া আনোয়ার হোসেন (৫০) কুষ্টিয়ার উত্তর ভেড়ামারা উপজেলার উত্তর ভেড়ামারা মহল্লার মৃত আমিন উদ্দিনের ছেলে।
এ ঘটনা নিয়ে ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মে. কামরুজ্জমান দুপুর সোয়া একটার দিকে ফরিদপুর পুলিশ সুপারের মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলন করেন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়, গত মঙ্গলবার বেনাপোল থেকে ঢাকাগামী রয়েল পরিবহনের শিতাতপ নিয়ন্ত্রিত একটি যাত্রীবাহী বাসে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। রাত সাড়ে ১০টার বাসটি ঢাকা-খুলনা মহা সড়কে ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের ছ্যানখালী এলাকায় পৌঁছিলে যাত্রীবেশী সাত/আট জনের একটি স্বশস্ত্র ডাকাতদল অস্ত্রেরমুখে বাসের চালক, ওই সহকারীদের জিম্মি করে বাসের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয়। ডাকাত দলের এক সদস্য বাসটি চালিয়ে ফরিদপুরের রাজবাড়ী রাস্তার মোড়ে এসে বাসটি ঘুরিয়ে আবার মধুখালীর দিকে নিয়ে যায়। ডাকাতরা যাত্রীদের মালামাল ও নগদ টাকা ডাকাতি করে মধুখালীর রায়পুর ইউনিয়নের ছকরিকান্দি এলকায় নেমে যায়। পরে ডাকাতরা একটি মাইক্রোতে করে পালিয়ে যায়। বাসের চালক এবং যাত্রীদের তথ্য মতে মধুখালী ও বোয়ালমারী পুলিশের সহায়তায় ডাকাতি করে মাইক্রোবসে পালিয়ে যাওয়ার সময় ধাওয়া করে বোয়ালমারী উপজেলার চাঁদপুর ইউনিয়নের চিতার বাজার এলাকায় মাইক্রোবসটি লক্ষ করে পুলিশ গুলি ছোড়ে। এসময় ডাকাতরা মাইক্রোবসটি ফেলে পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশের গুলিতে একজন আহত হয়ে গ্রেপ্তার হয়। অন্যরা পালিয়ে যায়।
মধুখালী ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রুহুল আমিন বলেন, পুলিশ গ্রেপ্তার হওয়া ব্যাক্তির কাছ থেকে একটি ওয়ান স্যুাটার গান ও দুটি গুলি উদ্ধার করে।  এছাড়া ফেলে যাওয়া মাইক্রোবাস থেকে ১৩টি লাগেস ও নগদ ১৭ হাজার পাঁটশ টাকা উদ্ধার করা হয়। তিনি বলেন, এ ব্যাপারে থানায় ডাকাতি ও অস্ত্র আইনে দুটি মামলাদায়ের করা হয়েছে। আহত ব্যাক্তিকে গ্রেপ্তার অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ডাকাতদলের বাকি সদস্যদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চালানো হচ্ছে।

No comments: