প্রধানমন্ত্রী নিরাপদে বুদাপেস্ট পৌঁছেছেন

প্রধানমন্ত্রী নিরাপদে বুদাপেস্ট পৌঁছেছেন

মিজান : দেশআমারবিডি ডট কম
আপডেট : ১০:৩৭ AM, ২৮ নভেম্বর ২০১৬  সোমবার   || 
প্রধানমন্ত্রী নিরাপদে বুদাপেস্ট পৌঁছেছেন
ডেস্ক রিপোর্ট : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরাপদে হাঙ্গেরির রাজধানী বুদাপেস্টে পৌঁছেছেন । প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমানটি বাংলাদেশ সময় রোববার রাত ১১টা ৫ মিনিটে বুদাপেস্টে পৌঁছায়।

হাঙ্গেরির প্রেসিডেন্ট জানোস এডারের আমন্ত্রণে বুদাপেস্ট পানি শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নিতে তিন দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে রোববার সকালে বাংলাদেশ বিমানের বোয়িং ৭৭৭ ফ্লাইটে বুদাপেস্টের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে যাত্রাপথে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে বাংলাদেশ সময় বেলা আড়াইটায় বিমানটি তুর্কমেনিস্তানের রাজধানী আশখাবাদে জরুরি অবতরণ করে। পরে ত্রুটি সারিয়ে ‘টেস্ট রান’ দেখে বাংলাদেশ সময় সন্ধ‌্যা সাড়ে ৬টার দিকে বিমানটি সবাইকে নিয়ে হাঙ্গেরির পথে রওনা হয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, পানিসম্পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এবং ব‌্যবসায়ীদের একটি প্রতিনিধিদল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে রয়েছেন।

বেসামরিক বিমান পরিবহনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন জানান, বিমানের দুই ইঞ্জিনের একটিতে ‘ফুয়েল প্রেশার’ কমে যাচ্ছিল। তাই তাৎক্ষণিকভাবে সবচেয়ে কাছের বিমানবন্দর হিসেবে আশখাবাদে অবতরণ করে।

বাসস জানিয়েছে, হাঙ্গেরির সিকিউরিটি পলিসি অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ইস্টভ এন মিকোলা, হাঙ্গেরিতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবু জাফর এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত হাঙ্গেরির রাষ্ট্রদূত গাইউলা পেথো এবং হাঙ্গেরির চিফ অব প্রটোকল ইস্টভ মেননো বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানান।

বিমানবন্দরে পৌঁছার পর হাঙ্গেরি সশস্ত্র বাহিনীর একটি চৌকস দল প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অব অনার প্রদান করে।
বিমানবন্দর থেকে প্রধানমন্ত্রীকে আনুষ্ঠানিক মোটর শোভাযাত্রা সহকারে ফোর সিজন্স হোটেল গ্রিসহাম প্যালেসে নিয়ে যাওয়া হয়। সফরকালে তিনি এ হোটেলে অবস্থান করবেন।

এদিকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বাংলাদেশ বিমানের বিশেষ ভিভিআইপি ফ্লাইট নম্বর বিজি ১০১১ ‘রাঙ্গা প্রভাত’ সকাল ৯টা ১৪ মিনিটে ঢাকা থেকে হাঙ্গেরির রাজধানী বুদাপেস্টের উদ্দেশে যাত্রা করে। যাত্রাপথে উক্ত বিমানে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেওয়ায় ফ্লাইটটির গতিপথ পরিবর্তন করে বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা ১৫ মিনিটে তুর্কমেনিস্তানের রাজধানী আশখাবাদে অবতরণ করে।

উক্ত ফ্লাইটে প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীসহ ৯৯ জন যাত্রী, ৪ জন ককপিট ক্রু, ২০ জন কেবিন ক্রু এবং চারজন এয়ারক্রাফট ইঞ্জিনিয়ার ছিলেন। বিমান আশখাবাদে অবতরণ করার পর ডিউটিরত ইঞ্জিনিয়াররা ত্রুটি মেরামতের জন্য কাজ করেন।

এরই মধ্যে ঢাকা থেকে লন্ডনগামী বিমানের অপর একটি শিডিউল ফ্লাইট বিজি ০০১ ‘আকাশ প্রদীপ’কে যাত্রাপথ পরিবর্তন করে আশখাবাদে প্রেরণ করা হয় এবং তা বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টা ১০ মিনিটে সেখানে অবতরণ করে। বিজি ০০১ ফ্লাইটকে ভিভিআইপি ফ্লাইটের ব্যাকআপ কভারেজ দেওয়ার জন্য তাৎক্ষণিকভাবে সেখানে পাঠানো হয়।

তবে পরে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী ভিভিআইপি ফ্লাইট (বিজি ১০১১) ‘রাঙ্গা প্রভাত’ এর যান্ত্রিক ত্রুটি মেরামত পূর্বক বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টা ৩৭ মিনিটে আশখাবাদ থেকে বুদাপেস্টের পথে যাত্রা করে।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট সকাল ৯টায় বুদাপেস্টের উদ্দেশে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করে।

সফরকালে প্রধানমন্ত্রী দুদিনের বুদাপেস্ট পানি শীর্ষ সম্মেলন (বিডব্লিউএস-২০১৬)-এর বিভিন্ন অধিবেশনে যোগদান করবেন এবং হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর অরবানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন। তিনি বাংলাদেশ-হাঙ্গেরি বিজনেস অ্যান্ড ইকোনমিক ফোরামের উদ্বোধন এবং প্রেসিডেন্ট জানোস এডারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

শেখ হাসিনা জাতিসংঘ ও বিশ্বব্যাংকের হাই লেভেল প্যানেল অন ওয়াটার (এইচএলপিডব্লিউ)-এর একজন সদস্য। সোমবার পানি শীর্ষ সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে তিনি যোগদান করবেন এবং তিনি হাঙ্গেরির প্রেসিডেন্ট ও অন্যান্য সম্মানীয় অতিথিদের সঙ্গে একটি সাসটেইনেবল ওয়াটার সল্যুশন এক্সপো পরিদর্শন করবেন।

পরদিন তিনি শীর্ষ সম্মেলনের একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে অংশ নেবেন এবং প্রেসিডেন্ট জানোস এডারের দেওয়া ওয়ার্কিং লাঞ্চে শরিক হবেন।

তিনি মঙ্গলবার সকালে হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর অরবানের সঙ্গে কসুদ স্কয়ারে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে মিলিত হবেন। আশা করা হচ্ছে সেখানে বেশ কয়েকটি চুক্তি স্বাক্ষর হবে। দ্বিপক্ষীয় বৈঠক শেষে দুই প্রধানমন্ত্রী যৌথ সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখবেন।

দুদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের মধ্যে আলোচনা, পানি ব্যবস্থাপনাসংক্রান্ত সহযোগী ও কৃষি বিষয়ে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হবে এবং এফবিসিসিআই ও হাঙ্গেরিয়ান চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির মধ্যেও একটি এমওইউ স্বাক্ষরিত হবে।

শেখ হাসিনা সোমবার বিকেলে হাঙ্গেরির প্রেসিডেন্ট জানোস এডারের সঙ্গে সান্দর প্রেসিডেন্সিয়াল প্রাসাদে বৈঠক করবেন।

তিনি মঙ্গলবার বুদাপেস্টে ‘হিরোস স্কয়ার’ পরিদর্শন করবেন এবং ফুল দিয়ে হাঙ্গেরি প্রতিষ্ঠায় জাতীয় বীর ও নিহত সেনাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন।

প্রধানমন্ত্রী বুধবার সকালে দেশের উদ্দেশে বুদাপেস্ট ত্যাগ করবেন এবং রাত সাড়ে ১১টায় ঢাকা পৌঁছাবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

No comments: