কলেজ পরিদর্শকের পছন্দের লোক না থাকায় মধুখালী আব্দুর রহমান করিম ডিগ্রী কলেজের শিক্ষকরা ৪ মাসের বেতন বোনাস ও শিক্ষার্থীরা উপবৃত্তি থেকে বঞ্চিত

কলেজ পরিদর্শকের পছন্দের লোক না থাকায়
মধুখালী আব্দুর রহমান করিম ডিগ্রী কলেজের শিক্ষকরা
৪ মাসের বেতন বোনাস ও শিক্ষার্থীরা উপবৃত্তি থেকে বঞ্চিত
শাহ্ মো. ফারুক হোসেন, মধুখালী (ফরিদপুর) সংবাদদাতা :
ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার নওপাড়া আব্দুর রহমান আব্দুল করিম ডিগ্রী কলেজের শিক্ষকরা ঈদের আগে তাদের ৪ মাসের বেতন বোনাস এবং প্রায় ৫০জন শিক্ষার্থী উপবৃত্তি থেকে বঞ্চিত হয়েছে। এ ব্যাপারে কলেজ শিক্ষকদের অভিযোগ গভার্নিং বডিতে কলেজ পরিদর্শকের পছন্দের লোক না থাকায় তিনি এ সমস্যার সৃষ্টি করেছেন।
সংশ্লিষ্ঠ কলেজ শিক্ষকরা জানান, এক শ্রেণির শিক্ষকরা কলেজ পরিদর্শক বরাবর অধ্যক্ষ মাহবুবুর রহমানের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও অচল অবস্থা এবং জামায়াত পন্থি কার্যক্রমের অভিযোগ দেন। অভিযোগের ভিত্তিতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ পরিদর্শক (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. মো. শামসুদ্দীন ইলিয়াস গত ১৩ আগষ্ট ২০১৬ তারিখে এক পত্রে কলেজে নানাবিধ অনিয়ম ও অচল অবস্থার কারণে ফরিদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) কে সভাপতি করে একটি এডহক কমিটি গঠন করেন। এবং কমিটিকে সুষ্ঠুভাবে কলেজ পরিচালনা ও অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের সুষ্ঠু তদন্তের অনুরোধ জানান।
এর প্রেক্ষিত এডহক কমিটির সভাপতি ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( শিক্ষা ও আইসিটি) তমিজুল ইসলাম খান নতুন কমিটি গঠনের লক্ষ্যে গত ১ সেপ্টেম্বর শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচন করেন। কিন্তু (ভারপ্রাপ্ত) কলেজ পরিদর্শক এর পছন্দের শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচিত না হওয়ায় পরের দিন ২ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখে কলেজ গভানিং বডির সভাপতি বরাবর অধ্যক্ষের কলেজে অনুপস্থিত থাকা বা দেশ ত্যাগ করা চাকুরি বিধি পরিপন্থিী এমতবস্থায় উপাধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকায় বিধিমোতাবেক জ্যেষ্ঠ ৫জন শিক্ষকের মধ্যে থেকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব প্রদানের অনুরোধ জানান। যে কারণে গভানিং বডির কার্যক্রম স্থবির হয়ে পরে। সে কারণে কলেজ শিক্ষকদের ৪মাসের বেতন ও বোনাস এবং প্রায় ৫০জন শিক্ষার্থীর উপবৃত্তি থেকে বঞ্চিত হয়েছে।
গভার্নিং বডির সভাপতি ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খাঁন জানান, আমি বদলী কারণে ঢাকায় মন্ত্রনালয়ে যোগদান করেছি। আমি রিলিজ হয়ে চলে এসেছি। স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের অভিযোগ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আলী আহমদ সেখ একজন জামায়াত কর্মী। এ ছাড়া তার পদটি প্রশ্নবিদ্ধ। বেতন বোনাজের ক্ষেত্রে এমপিও ভূক্ত কারা বা ননএমপিও কারা সেটা পরিস্কার নয়।
কলেজ উপাধ্যক্ষ ও ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আলী আহম্মাদ সেখ জানান, তিনি বিধি মোতাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্বে আছেন। তিনি বলেন, আমি নওপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব বিষয়ক সম্পাদক পদে আছি।
নওপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. সফিকুল ইসলাম খান জানান, নওপাড়া হাজি আব্দুর রহমান আব্দুর করিম ডিগ্রী কলেজের উপাধক্ষ্য আলি আহম্মদ সেখ আমার কমিটির শিক্ষা ও মানব বিষয়ক সম্পদক তিনি একজন পুরানো আওয়ামীলীগ নেতা।
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ পরিদর্শক(ভারপ্রাপ্ত)  প্রফেসর ড. মো. শামসুদ্দীন ইলিয়াস জানান, কলেজে একটি গভার্নিং বডি কমিটি দেওয়া আছে তাদের সাথে কথা বলেন।

No comments: