মধুখালীতে হত্যা মামলায় উপজেলা বিএনপির সভাপতিসহ দুই নেতা জেলহাজতে


মধুখালীতে হত্যা মামলায় উপজেলা বিএনপির সভাপতিসহ দুই নেতা জেলহাজতে
মধুখালী প্রতিনিধি :
ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. রাকিব হোসেন চৌধুরী ওরফে ইরানসহ বিএনপির দুই নেতাকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে আদালত।
আজ মঙ্গলবার ফরিদপুরের চার নম্বর আমলি আদালতের বিচারক এ আদেশ দেন। বিএনপির অপর নেতা হলেন মো. আক্কাস আলী মৃধা। তিনি কামারখালী ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি।
এরা দুজনই ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার বাগাট ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ প্রার্থীর ভাই আতিয়ার রহমান খান হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামী।
আজ মঙ্গলবার দুপুরে বিএনপি নেতা রাকিব ও  আক্কাস আলী আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন জানালে আদালতের বিচারিক হাকিম বেগম কাইছুন নাহার সুরমা উভয়েরই জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে তাদের জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বিএনপি নেতার আইনজীবী জাহিদ বেপারী জানান, এর আগে উপজেলা বিএনপির সভাপতি হাইকোর্ট থেকে চার সপ্তাহের জামিন পেয়েছিলেন। উচ্চ আদালতের নির্দেশে গতকাল মঙ্গলবার নিম্ন আদালতে হাজির হয়ে জামিন চাইলে আদালত আবেদন নামঞ্জুর করে রাকিব ও আক্কাসকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
প্রসঙ্গত গত ২৩ এপ্রিল দিবাগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে মধুখালীর বাগাট বাজারে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মতিয়ার রহমান খানের নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা ঘটনায় প্রার্থীর বড়ভাই আতিয়ার রহমান (৫৫) নিহত হন। পুলিশ ওই রাতেই বাগাট ইউনিয়নের বিএনপির প্রার্থী আব্দুর রহিম ফকির সহ ১৩জনকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠায়। এ ঘটনায় নিহতের চাচা শাহাদাত হোসেন বাদী হয়ে  ১০৩ জনকে আসামী করে মধুখালী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামালার বেশীর ভাগ আসামীই মধুখালী উপজেলা বিএনপির নেতা ও কর্মী।

No comments: