কেন আজ শিশুকে খাওয়াবেন ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল

স্টাফ রিপোর্টার
আজ শনিবার (১৪ নভেম্বর) সারাদেশে উদযাপিত হচ্ছে জাতীয় ভিটামিন `এ` প্লাস ক্যাম্পেইন দিবস। দিবসটিতে সারা দেশে প্রায় ২ কোটি ১৪ লাখের বেশি শিশুকে ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল খাওয়ানোর টার্গেট নিয়েছে সরকার। এর মধ্যে রয়েছে আপনার সন্তানটিও। দেরি না করে আপনার শিশুটিকে ক্যাপসুল খাওয়াতে নিকটবর্তী টিকা কেন্দ্রে নিয়ে যান।
এই ক্যাপসুল আপনার শিশুকে ভিটামিন 'এ' এর অভাবজনিত রোগ থেকে রক্ষা করবে। এক হিসাব মতে, বাংলাদেশে প্রতি বছর ৯০ হাজার শিশু ভিটামিন 'এ' এর অভাবজনিত চক্ষুরোগে আক্রান্ত হয়। এর মধ্যে ৪০ হাজার শিশু অন্ধ হয়ে যায়।
পৃথিবীতে অন্ধত্বের চারটি প্রধান কারণের মধ্যে ভিটামিন 'এ' এর অভাবজনিত কর্ণিয়ার রোগ ও কর্ণিয়ার ক্ষত অন্যতম। এই ভিটামিনটির অভাবে আপনার শিশুটি হয়ে যেতে পারে রাতকানা। হয়ে যেতে পারে চিরদিনের জন্য অন্ধ। এই ভিটামিনটি দৃষ্টি শক্তি স্বাভাবিক রাখতে বিরাট ভূমিকা পালন করে। ত্বক ও শ্লৈষ্মিক ঝিল্লির স্বাস্থ্যরক্ষার কাজ করে। দেহ বৃদ্ধি, বিশেষ করে দেহের অস্থি কাঠামোর বৃদ্ধি প্রক্রিয়ার সঙ্গে ভিটামিন 'এ' এর সংযোগ রয়েছে। ভিটামিন 'এ' জীবাণু সংক্রমণ থেকে দেহকে রক্ষা করে।
ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল গ্রহণকারীদের করণীয় হচ্ছে, শিশুদের অবশ্যই ভরপেটে আসতে হবে। ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুলের মুখ কেটে ভিতরে থাকা তরল ওষুধ চিপে খাওয়ানো হবে। জোর করে বা কান্নারত অবস্থায় ক্যাপসুল খাওয়ানো ঠিক হবে না। তাতে ক্যাপসুলের তরল লালার সঙ্গে বেরিয়ে যেতে পারে।
দিবসটি উপলক্ষে গত বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক এই কর্মসূচি সফল করতে দেশবাসীর প্রতিও আহবান জানান। তিনি বলেন, ৬ থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুদের মা-বাবা ও অভিভাবকরা যেন অবশ্যই তাদের শিশুদের এদিন টিকাকেন্দ্রে নিয়ে আসেন। মন্ত্রণালয়, সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা, ছাত্র-শিক্ষক, সাংবাদিক-সবাই এ কার্যক্রমে অংশ নেবেন।
৬ থেকে ১১ মাস বয়সী সকল শিশুকে একটি করে নীল রঙের ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী সকল শিশুকে একটি করে লাল রঙের ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। দিবসটিতে টিকাদান কেন্দ্রগুলো খোলা থাকবে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। সারা দেশে এক লাখ ২০ হাজার স্থায়ীকেন্দ্রের সঙ্গে আরও ২০ হাজার ভ্রাম্যমাণ কেন্দ্রে এ সেবা কার্যক্রম পরিচালিত হবে। বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ড, লঞ্চঘাট, ফেরিঘাট, ব্রিজের টোলপ্লাজা, বিমানবন্দর, রেলস্টেশন, খেয়াঘাটে ভ্রাম্যমাণ কেন্দ্রগুলো থাকবে। প্রতিটি কেন্দ্রে কমপক্ষে ৩ জন প্রশিক্ষিত স্বেচ্ছাসেবী দায়িত্ব পালন করবে।
রাষ্ট্রপতি শুক্রবার বঙ্গভবনে বেশকিছু শিশুকে ভিটামিন-এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানোর মাধ্যমে দেশব্যাপী এ ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করেন। তিনি পিতা-মাতার প্রতি তাদের ৬ মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুদের এই জীবন রক্ষাকারী ক্যাপসুল খাওয়াতে নিকটবর্তী টিকা কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার জন্য পিতা-মাতাদের প্রতি আহবান জানান।

No comments: