অনুভূতি ও সম্পর্ক

স্টাফ রিপোর্টার
আপনি সন্তানসম্ভবা - এটা জানার সাথে সাথে সবকিছু বদলে যেতে শুরু করে। আপনার ব্যাপারে আপনার নিজের অনুভূতি পালটায়, অনাগত শিশু আর আর তার ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবনা শুরু হয়। আপনার স্বামীর সাথে আপনার সম্পর্ক পালটায়, ইতিমধ্যে যদি আপনি এক সন্তানের মা হয়ে থাকেন, তাহলে সেই শিশুটির সাথেও আপনার সম্পর্কের নতুন মাত্রা যোগ হয়। সম্পর্কের মাত্রা বদলায় আপনার মা-বাবা, আত্মীয়-স্বজন আর বন্ধু-বান্ধবের সাথে। আর, এই পরিবর্তনগুলোর সাথে হঠাৎ করে খাপ খাইয়ে নেয়াও সহজ হয় না।
এই নিবন্ধে যে বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে তার সবকিছুই যে সবার ক্ষেত্রে ঘটে তা নয়। আপনার যে সমস্যাটা হচ্ছে না, সেটা হয়তো অন্য আরেকজন সন্তানসম্ভবা মায়ের জন্য গুরুতর সমস্যা। এই নিবন্ধ থেকে সবাই তাদের নিজস্ব সমস্যা অনুযায়ী পরামর্শগুলো কাজে লাগাতে পারেন।< সময় আপনার শরীরে যেসব হরমোনের পরিবর্তন হচ্ছে সেগুলো নিয়ে পড়ুন। আপনার হয়তো দুশ্চিন্তা হয়, কিংবা রাতে ঘুমের ঘোরে হয়তো অদ্ভুত স্বপ্ন দেখেন, এমনকি দুঃস্বপ্নও দেখেন - সেগুলো সম্পর্কে জানুন। আপনার মনে বিষন্নতার বীজ সুপ্ত আছে কি না সেটা জানাও কিন্তু জরুরি।
তলপেটের সংকোচনের এর সাথে কীভাবে খাপ খাইয়ে নেবেন সে ব্যাপারে জেনে নিতে হবে। সেই সাথে যদি এটাও জেনে নেন যে দুশ্চিন্তাগুলোকে ঝেড়ে ফেলবেন কিভাবে, আর অনাগত শিশুটির ব্যাপারে কি চাইতে পারেন, তাহলে দুশ্চিন্তামুক্ত হওয়া সহজ হবে।
গর্ভের শিশুকে নিয়ে এরকম দুশ্চিন্তা হওয়াটা স্বাভাবিক। জেনে নিন, কি করলে ঝুঁকিমুক্ত থাকতে পারেন আর কোন কাজগুলো ঝুঁকি বাড়াতে পারে। গর্ভের শিশুর কোনো অস্বাভাবিকতা আছে কি না সেটা জানার জন্য বিভিন্ন ধরণের স্ক্রিনিং টেস্ট আছে, সেগুলো সম্পর্কেও জানুন।
জেনে নিন গর্ভাবস্থায় আশেপাশের মানুষদের সাথে সম্পর্কগুলো কিভাবে পালটায়, কেনই বা পালটায়।
গর্ভাবস্থায় যৌন মিলন কতটুকু পর্যন্ত নিরাপদ আর কতটুকু নয় ? এ সময় আপনার পেট বড় হয়ে যাচ্ছে, ফলে কোন ভঙ্গিতে যৌন মিলন করা আপনার জন্য নিরাপদ হবে সে ব্যাপারে পরামর্শগুলো জেনে নিন।
যাদের সাথে প্রতিদিন কাজ করছেন, তাদের কাছ থেকে বিদায় নিয়ে লম্বা ছুটিতে যাচ্ছেন - তার মানে কিন্তু নিজের জন্য আর অনাগত সন্তানের জন্যই এই সময়টাকে বরণ করছেন।
আপনি গর্ভবতী, কিন্তু আপনার সঙ্গী হয়তো আপনার সাথে নেই। সেক্ষেত্রে অন্যান্য সন্তানসম্ভবা নারীদের সাথে কথা বলতে পারেন। কোথায় থাকবেন, টাকা-পয়সা কীভাবে ব্যবস্থা করবেন এগুলো জানা আপনার জন্য জরুরি। তাছাড়া সন্তান প্রসবের সময় সঙ্গী হিসেবে কে আপনার সাথে থাকবে সেটাও ঠিক করতে হবে।
একজন নারী তার ঘরে এমনকি গর্ভাবস্থায়ও শারীরিক, আবেগী, যৌন বা মানসিক যে কোনোভাবেই নির্যাতিত হতে পারেন। এসব নির্যাতনের লক্ষণগুলো কি হয়, আর কোথায় গেলে আপনি সাহায্য পেতে পারেন সে সম্পর্কে জানুন।
একজন নতুন শিশুর আগমন অবশ্যই একটা সুন্দর চমক। কিন্তু, এমনও হতে পারে যে আপনার যদি ইতিমধ্যেই একজন সন্তান থাকে সে এই নতুন শিশুর আগমনে নিজেকে অনিরাপদ ভাবতে পারে, এমনকি ঈর্ষান্বিত বোধ করতে পারে। নতুন শিশুর আগমন কি প্রথম সন্তানকে মানসিকভাবে প্রচন্ড আহত করতে পারে? সে কি এভাবে ভাবে যে তার খেলনা, কাপড়-চোপড় এসব নতুন শিশুটির সাথে ভাগাভাগি করে নিতে হবে? শুধু তাই না, তাকে তো এখন তার পুরনো খাট, এমনকি তার ঘর, তার প্রিয় দাদা-দাদী, নানা-নানীকেও ভাগাভাগি করতে হবে। সবচেয়ে ভয়ঙ্কর ব্যাপার হচ্ছে তার মা-বাবার ওপরও নতুন শিশুটি ভাগ বসাবে! তার এতদিনের একান্ত নিজস্ব জগতে যেন একটা আগন্তুক এসে হানা দিচ্ছে! এসব অনুভূতি দ্বারা তাড়িত হয়ে শিশুরা অনেক সময়ই এমন কাজ করে যেগুলো নিয়ে হয়তো অনেক বছর পরে অনেক হাসাহাসি হয়। কিন্তু, কখনো কখনো এমন পরিস্থিতিও তৈরি হয় যার জন্য সারাজীবন হয়তো একটা পরিবারকে দুঃখ বয়ে বেড়াতে হয়।

No comments: