পাঁচ বছরে সর্বনিম্ন সোনার দাম

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভ সুদের হার বাড়াবে এমন সম্ভাবনায় সোনার দাম কমে পাঁচ বছরে সর্বনিম্ন হয়েছে। গতকাল এশিয়ার বাণিজ্যে সোনার দাম ৪ শতাংশ কমে হয় আউন্সপ্রতি এক হাজার ৮৮ ডলার। যা ২০১০ সালের মার্চের পর থেকে সর্বনিম্ন। যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার জোরালো হওয়ায় দেশটিতে সুদের হার বাড়ানোর সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। এতে বিনিয়োগকারীরা ডলারমুখী হওয়ায় কমতে শুরু করে সোনার দাম। গত সপ্তাহে ফেডারেল রিজার্ভের চেয়ারম্যান জ্যানেট ইয়েলেন সুদের হার বাড়ানোর বিষয়টি পুনর্ব্যক্ত করার পর থেকেই সোনার দাম পড়তে শুরু করে।
বিনিয়োগকারীরা সাধারণত অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তায় সোনার দিকে ঝোঁকে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার শুরু হওয়ায় ডলারও শক্তিশালী হচ্ছে। যা অনেককে সোনা বেচে ডলারে বিনিয়োগে আগ্রহী করে তোলে। গতকাল প্রথমবারের মতো সোনার দাম আউন্সপ্রতি এক হাজার ১০০ ডলারের নিচে আসে। যা ২০১০ সালের ২৬ মার্চের পরে আর হয়নি। সোনার পাশাপাশি প্লাটিনামের দামও ৫ শতাংশ কমে। ট্রেডিং ফার্ম আইজির বাজার বিশ্লেষক ইভান লুকাস বলেন, সাম্প্রতিক দরপতন ইঙ্গিত দিচ্ছে বছর শেষে সোনার দাম আউন্সপ্রতি এক হাজার ডলারে ফিরে আসতে পারে। তিনি বলেন, এ মুহূর্তে সোনা কেনার কোনো কারণ নেই। বরং বিনিয়োগকারীদের জন্য ডলার কিংবা বন্ড কেনাই বেশি সুবিধাজনক হবে। বিবিসি, ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল।

No comments: